মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C

উপজেলা রিসোর্স সেন্টার, শেরপুর, বগুড়া।

প্রাথমিক শিক্ষার গুণগতমান উন্নয়নের লক্ষ্যে বর্তমান বাংলাদেশে সরকারি ভাবে ৫৫টি পিটআইতে শিক্ষকদের পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য এক বৎসর মেয়াদি সি-ইন-এড/ডিপিএড প্রশিক্ষণ কার্যক্রম চলছে। শিক্ষকদের এই এক বৎসর মেয়াদি সি-ইন-এড প্রশিক্ষণ কার্যক্রম ছাড়াও যাতে তাদের পৌনঃপুনিক চাকুরীকালীন প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের মাধ্যমে দক্ষ শিক্ষক হিসেবে গড়ে তোলা যায়, সে লক্ষ্যে বাংলাদেশ সরকার প্রাথমিক শিক্ষার উন্নয়ন কর্মসচিতে বেশ কিছু কর্মসূচি গ্রহণ করে। প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের পেশাগত দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য নানাবিধ সহায়তা দানের উদ্দেশ্যে উপজেলা পর্যায়ে একটি  রিসোর্স সেন্টার প্রতিষ্ঠা এর মধ্যে অন্যতম। বস্তুতঃপক্ষে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকদের নিয়মিত প্রশিক্ষণ ও শিক্ষার মাধ্যমে পেশাগত দক্ষতা উৎকর্ষ সাধন তথা শ্রেণিকক্ষের দৈনন্দিন শিখন-শেখানো প্রক্রিয়ায় কৌশল বৃদ্ধিই উপজেলা রিসোর্স সেন্টার স্থঅপনের মূল উদ্দেশ্য এবং এটি প্রাথমিক শিক্ষা ব্যবস্থঅপনার এক নূতন অবকাঠামোগত সংযোজন। প্রাথমিক শিক্ষার মানোন্নয়নের লক্ষ্যে প্রথম প্রাথমিক শিক্ষা উন্নয়ন কর্মসূচি (১৯৯৭-২০০৩) এর আওতায় আইডিয়াল ও নরওয়ে সাহায্যপুস্ট প্রাথমিক শিক্ষার গুণগতমান উন্নয়ন শীর্ষক প্রকল্প দু’টির অর্থায়নে পর্যঅয়ক্রমে দেশের ৪৮১টি থানা/উপজেলায় উপজেলা রিসোর্স সেন্টার স্থাপিত হয়। সেই ধারাবাহিকতায় ২০০০ সালে বগুড়া সদর, বগুড়ায় ইউআরসি প্রতিষ্ঠিত হয়।পরবর্তিতে ২০০৫ সালে বাংলাদেশ সরকার দেশের ৪৮১টি থানা/উপজেলা রিসোর্স সেন্টার রাজস্ব বাজেটে আওতাভূক্ত করেন। বর্তমানে ইউআরসিগুলো প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের নিয়ন্ত্রণাধীন প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তর, বাংলাদেশ, ঢাকা এর অধীনস্থ প্রাথমিক শিক্ষাকে যুগোপযোগী করে তোলার একটি অপরিহার্য প্রতিষ্ঠান।